Business is booming.
শীর্ষ সংবাদ
মোহাম্মদ নাসিম এর প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী সিরাজগঞ্জে উদযাপনধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এর পর অভিযুক্তের নাম জানালেন পরীমণি১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসযথাযোগ্য মর্যাদায় সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনবীর মুক্তিযোদ্ধা বাবার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা সালমান মাহমুদ এরদেশে করোনায় মৃত্যু কমে আজ ৫০ আক্রান্ত ১৭৪২দেশে করোনায় মৃত্যু কমে আজ ৬১, আক্রান্ত ১৯১৪ঈদ পর্যন্ত লকডাউন, ১৬ মে পর্যন্ত থাকবে বিধিনিষেধ।ক্যান্ডিতে দ্বিতীয় টেস্টে লজ্জাজনক হার টাইগারদেরশিবচরে বাল্কহেড ও স্পিডবোট সংঘর্ষ, ২৬ মরদেহ উদ্ধার

সত্যজিৎ রায় এই কিংবদন্তীর জন্মশতবার্ষিকী আজ

বছরব্যাপী সত্যজিতের জন্মশতবার্ষিকী পালন করবে ভারত

21
অনলাইন ডেস্ক ০২ মে, ২০২১

সত্যজিৎ রায় নামটাই একটা ব্র্যান্ড। ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাস বদলে দিয়েছিল তাঁর সিনেমা পথের পাঁচালী। এই কিংদবন্তির জন্মশতবার্ষিকী আজ ২ মে। এ উপলক্ষে সত্যজিতকে সম্মান জানাতে বছরব্যাপী অনুষ্ঠান পালন করার ঘোষণা দিয়েছে ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। দেশে এবং বিদেশে মহামারী পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রত্যেকটি অনুষ্ঠান হাইব্রিড মোড, ডিজিটাল এবং ক্ষেত্রবিশেষে সরাসরি অনুষ্ঠিত হবে। এখবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

এবছর থেকে সত্যজিতের নামে ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে দেওয়া হবে ‘সত্যজিৎ রায় লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন সিনেমা’ পুরষ্কার। শুধু তাই নয়, ৭৪তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালেও এবার থাকবে সত্যজিৎ রায়ের স্মৃতিচারণা। তাঁর বিভিন্ন ছবি নিয়ে একটি বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে। মুম্বাইয়ের ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব ইন্ডিয়ান সিনেমাতে এবার থেকে একটি বিশেষ এগজিবিশন থাকবে সত্যজিৎ জীবন ও কাজের ওপর।

তিনি এমনই এক উজ্জ্বল নক্ষত্র যিনি বাংলা চলচ্চিত্র তো বটেই এমনকি পুরো উপমহাদেশের চলচ্চিত্রকে এক ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে গিয়েছিলেন। ২০০৪ সালে বিবিসির সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি তালিকায় তিনি ১৩তম স্থান লাভ করেছিলেন। ১৯২১ সালের ২ মে কলকাতা শহরের খ্যাতনামা রায় পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। মূলত বিজ্ঞাপন সংস্থায় কাজের মধ্যে দিয়েই শুরু তাঁর কর্মজীবন। সাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দোপাধ্যায়ের উপন্যাস ‘পথের পাঁচালি’ থেকে বানানো তাঁকে আন্তর্জাতিক মঞ্চে খ্যাতি এনে দেয়। ‘চারুলতা’, ‘আগন্তুক’, ‘নায়ক’-এর মতন দুর্দান্ত সিনেমাগুলি তাঁরই সৃষ্টি।

সিনেমার পাশাপাশি সাহিত্যেও ছিল অবাধ আচরণ। তাঁর সৃষ্ট ফেলুদা, প্রোফেসর শঙ্কু চরিত্রদু’টি আজও পাঠকের কাছে সমানভাবে জনপ্রিয়। সোনার কেল্লা, জয় বাবা ফেলুনাথ-এর মতো বেশ কিছু নিজের লেখা উপন্যাসকে চলচ্চিত্রেও রূপ দিয়েছেন তিনি। ১৯৯২ সালে ভারত সরকার তাঁকে ভারতরত্ন সম্মানে ভূষিত করে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.

Select Language